দেশ

উল্লাপাড়ায় কম্বাইন্ড হারভেস্টার মেশিনই কৃষকের ভরসা

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি ২০ মে, ২০২২, ১৭:১৪:৫৫

  • ছবি: নিউজজি

সিরাজগঞ্জ: চলতি বোরো মৌসুমে পুরোদমে ধান কাটা শুরু হলেও অতিবৃষ্টি শেষ হওয়ার পর শ্রমিক সংকটে বিপাকে পড়েন এ জেলার কৃষকরা। অতিরিক্ত মূল্য দিয়েও মিলছে না শ্রমিক। তার ওপর পাকা ধানের জমিতে জমে আছে পানি।

শ্রমিক সংকটের মধ্যে জেলার উল্লাপাড়ায় কৃষকদের মাঝে আশার আলো হয়ে এসেছে অত্যাধুনিক ধান কাটা ও মাড়াইয়ের মেশিন কম্বাইন্ড হারভেস্টার। অবশেষে মেশিনের সাহায্যে এ অঞ্চলের কৃষকরা রাত-দিনে ধান কেটে ঘরে তুলছেন। এতে শ্রমিক সংকট মেটানোর পাশাপাশি ধান উৎপাদন খরচও কমে এসেছে।

জানা গেছে, প্রতিবছর ইরি ও বোরো ধান কাটার মৌসুমে উল্লাপাড়ায়  শ্রমিকের চাহিদা বেড়ে যায়। চাহিদার পাশাপাশি বেড়ে যায় পারিশ্রমিকও। এতে বোরো ধান উৎপাদন খরচ বেড়ে যায়। এজন্য কৃষকের দুশ্চিন্তা লাঘবে উল্লাপাড়ায় আনা হয়েছে কম্বাইন্ড হারভেস্টার মেশিন। মেশিনটি আধুনিক পদ্ধতিতে ধান কাটা ও মাড়াই করতে পারে। শুধু রোদে শুকিয়ে ধান ঘরে তুলতে হয়।

কম্বাইন্ড হারভেস্টার চালক রঞ্জু মিয়া বলেন, এ মেশিন দিয়ে খুব সহজেই এখন ধান ঘরে তুলতে পারছেন কৃষকরা। প্রতি ঘণ্টায় ২ থেকে ৩ বিঘা জমির ধান কাটা যাচ্ছে। এতে ঘণ্টায় ৮ থেকে ১০ লিটার তেল খরচ হচ্ছে।

এক বিঘা জমির ধান কাটতে সর্বোচ্চ ২ হাজার ৫০০ টাকা টাকা খরচ হয়। অথচ শ্রমিক দিয়ে ধান কাটালে ৫ থেকে ৭ জন শ্রমিক সারাদিনে এক বিঘা জমির ধান কাটতে পারেন। তাতে বিঘা প্রতি খরচ হয় ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা।

উল্লাপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুবর্ণা ইয়াসমিন সুমি বলেন, চলতি বোরো মৌসুমে উপজেলায় কম্বাইন্ড হারভেস্টার মেশিন দেয়া হয়েছে। প্রতিটি মেশিনের দাম ৩০-৩২ লাখ টাকা। সরকার প্রতিটি মেশিনের ওপর ১৪ লাখ টাকা ভর্তুকি দিয়েছে। মেশিনের সাহায্যে ধান কেটে ও মাড়াই করে শুধুমাত্র রোদে শুকিয়ে ঘরে তুলতে হয়। চালক অভিজ্ঞ হলে ঘণ্টায় ১ একর জমির ধানও কাটা সম্ভব। এছাড়া, জমিগুলো সমতল হলে আরও বেশি ধান কাটা যেত।

প্রতিবছরই বোরো ধান কাটার সময় শ্রমিক সংকট তীব্র আকার ধারণ করে। এ কারণে সময় মতো ধান ঘরে তুলতে না পেরে বৃষ্টি ও অকাল বন্যায় কৃষকের ধান নষ্ট হয়ে যায়। এখন কম্বাইন্ড হারভেস্টার মেশিন দিয়ে স্বল্প খরচে ধান ঘরে তোলা যাচ্ছে।

নিউজজি/এইচএম/নাসি  

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ