দেশ

‘দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধিকারীদের কিছুই করতে পারে না সরকার’

নিউজজি প্রতিবেদক ২৮ নভেম্বর, ২০২০, ১৭:৫২:৩২

  • ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের জেলে দিতে পারে কিন্তু যারা দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়ায় তাদের কিছু করার ক্ষমতা নেই। শনিবার (২৮ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে লেবার পার্টির উদ্যোগে চাল, পিয়াজ, আলুসহ দ্রব্যমূল্যোর লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণের দাবিতে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারের সমালোচনা করে মাহমুদুর রহমান বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে বলেছিল, ক্ষমতায় গেলে তারা ১০ টাকা কেজি চাল খাওয়াবে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমাবে। ১২ বছর যাবৎ সরকার ক্ষমতায় আছে। যে চাল ১০ টাকা কেজি খাওয়াবেন সেটা এখন ৬০ টাকা কেজি খাওয়াচ্ছেন। কিন্তু এতে সরকার দুঃখিত না বলে বক্তব্য দেন মান্না।

প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারের সমালোচনা করে ঢাবির সাবেক এই ভিপি বলেন, পেঁয়াজসহ সবকিছুর দাম বেড়ে গেছে, জনগণের যে কষ্ট হচ্ছে সেটা তারা বলে না। অথচ ১৫-২০ দিন পর পর পদ্মা সেতুতে একটা স্প্যান বসিয়ে দেশের মানুষকে তাক লাগিয়ে দিতে চায় যে তারা উন্নয়ন করছি। যে উন্নয়নে মানুষ না খেয়ে থাকে, যে উন্নয়নে মানুষ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বেচে দেয়, সেটা কোনো উন্নয়ন নয়। উন্নয়ন হচ্ছে সর্বস্তরের মানুষের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান নিশ্চিত করা। এই সরকার সেটা মনে করে না বলে উল্লেখ করেন তিনি।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, মেগা প্রজেক্টের নামে লুটপাটের রাজনীতি চলছে এটা আমরা সবাই দেখতে পাচ্ছি। জিনিসের দাম বাড়ার পেছনে সরকার কোনো যুক্তি দিতে পারেনি। আপনি অসুখে মরবেন, ক্ষুধায় মরবেন তার পরও জিনিসের দাম কমাবে না। সিন্ডিকেটকে ধরতে পারবেন না তাই জিনিসের দাম কমাতে পারবেন না বলেন বক্তব্য দেন তিনি।

মান্না বলেন, এই সরকার যতদিন ক্ষমতায় আছে ততদিন জিনিসের দাম কমবে না। আর নারীর ইজ্জতও রক্ষা হবে না। ফাঁসির আইন করেছে সরকার কিন্তু তার পরও প্রতিদিন ধর্ষণের খবর পাচ্ছেন। এ সরকারের অধীনে থাকলে কোনোদিনই গুম-খুন বন্ধ হবে না। বস্তিতে আগুন লাগবে তার কোনো ব্যবস্থা হবে না। অতএব কাজ একটাই সবাই মিলে জোট বাঁধেন, রাস্তায় নামেন। জনতার ঢলে রাজপথ বন্ধ করে দেন এবং বলেন আপনি (শেখ হাসিনা) না গেলে আমরাও যাব না।

এ সময় দেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সামনে ডিসেম্বর মাস, বিজয়ের মাস, আমাদের বিজয় ছিনিয়ে নিয়েছে এই হাইজাকাররা, ভোটের ডাকাতরা। তাদের কাছ থেকে বিজয় ছিনিয়ে আনতে শপথ করুন।

সংগঠনের চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, লেবার পার্টির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার ফরিদ উদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব লায়ন ফারুক রহমান, কৃষক দলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির, যুব মিশনের সভাপতি মহিবুল্লাহ মেহেদি, ছাত্র মিশনের সভাপতি সৈয়দ মো. মিলন প্রমুখ।

নিউজজি/ আইএইচ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers