বিনোদন

গানের বকুল

নিউজজি প্রতিবেদক  নভেম্বর ২১, ২০২০, ১৬:৪৮:১৮

  • গানের বকুল

গত শতকের নব্বই দশক কিংবা এই শতকের শূন্য দশক; দেশের সিনেমার গানে যিনি বকুল ফুলের মতো সুঘ্রাণ ছড়িয়েছেন, তিনি কবির বকুল। তার লেখা অসংখ্য গান শ্রোতাদের মনের গভীরে জায়গা করে নিয়েছে। জয় করেছে কালের সীমানা।

আজ ২১ নভেম্বর গুণী এই গীতিকারের জন্মদিন। শুভ জন্মদিন গানের বকুল- কবির বকুল।

১৯৬৬ সালের ২১ নভেম্বর কবির বকুল চাঁদপুরে জন্মগ্রহণ করেন। শৈশব থেকেই তার লেখালেখির হাতেখড়ি। তবে ১৯৮৬ সাল থেকে তিনি গান লেখা শুরু করেন। দুই বছরে বেশ কিছু গান রচনা করেন বকুল। এরপর ১৯৮৮ সালে ১৩টি গান জনপ্রিয় শিল্পী তপন চৌধুরীকে দেন। সেখান থেকে দুটি গান দুটি অ্যালবামে প্রকাশ হয়। প্রথম গান ছিল ‘কাল সারা রাত তোমারই কাঁকন যেন মনে মনে রিনিঝিনি বেজেছে’। যেটির গায়ক ছিলেন প্রয়াত ব্যান্ডশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু। দ্বিতীয় গানটি ছিল ‘পথে যেতে যেতে খুঁজেছি তোমায়’। এটির গায়ক ছিলেন শিল্পী নাসিম আলী খান।

পাঁচ বছর পর কবির বকুল সাংবাদিকতা শুরু করেন। ১৯৯৩ সালে তিনি যোগদান করেন ভোরের কাগজে। সেখানে পাঁচ বছর কাজ করে যুক্ত হন প্রথম আলোতে। দেশসেরা এই পত্রিকার সূচনালগ্ন থেকে কবির বকুল যুক্ত ছিলেন। ২০১১ সালে তিনি মাছরাঙা টিভিতে যোগ দেন। এপর আবার ২০১৫ সালে তিনি পুরনো কর্মস্থল প্রথম আলোয় ফিরে আসেন।

সিনেমার গানে কবির বকুলের অভিষেক হয় ১৯৯৪ সালে ‘অগ্নি সন্তান’ দিয়ে। প্রথম গান দিয়েই তিনি শ্রেষ্ঠ গীতিকার হিসেবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির পুরস্কারে মনোনয়ন পেয়েছিলেন।

সিনেমার গানে কবির বকুল হচ্ছেন সর্বশেষ কিংবদন্তি গীতিকার। আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল কিংবা গাজী মাজহারুল আনোয়ারদের পর তিনিই সবচেয়ে বেশি শ্রোতাপ্রিয় গান লিখেছেন।

কবির বকুল এ পর্যন্ত আট শতাধিক সিনেমায় গান লিখেছেন। সব মিলে তার গানের সংখ্যা পাঁচ হাজারের বেশি। এর মধ্যে কালজয়ী ও উল্লেখযোগ্য কয়েকটি গান হচ্ছে- ‘যায় দিন যায় একাকী’, ‘কেউ প্রেম করে কেউ প্রেমে পড়ে’, ‘আমার মাঝে নেই এখন আমি’, ‘দুঃখটাকে দিলাম ছুটি’, ‘আসবার কালে আসলাম একা’, ‘আকাশ ছুঁয়েছে মাটিকে’, ‘এতো ভালোবেসো না আমায়’, ‘লাজুক পাতার মতো লজ্জাবতী’, ‘তোমারে দেখিলো পরাণও ভরিয়া’, ‘একটা চাঁদছাড়া রাত আঁধার কালো’, ‘কই গেলা নিঠুর বন্ধু রে’, ‘জল পড়ে পাতা নড়ে’, ‘নয়নও ঘুরাই খুঁজি তোমারে তোমারে’, ‘ও প্রিয় আমি তোমার হতে চাই’, ‘আমি নিঃস্ব হয়ে যাবো জানো না’, ‘বলো না কেন ওই আকাশ নেমে আসে’, ‘প্রেমে পড়েছে মন প্রেমে পড়েছে’, ‘হও যদি ওই নীল আকাশ’, ‘টুকরো টুকরো করে দেখো আমারই অন্তর’, ‘প্রিয়া আমার প্রিয়া’, ‘দিল দিল দিল’, ‘আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা’, ‘লাভ ম্যারেজ’ ইত্যাদি।

সিনেমার বাইরে কবির বকুল অ্যালবামেও গান লিখেছেন। অডিও জগতে তার লেখা জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- ‘কেন এই নিঃসঙ্গতা’, ‘ব্যস্ততা আমাকে দেয় না অবসর’, ‘আমার এক নয়ন তো দেখে না রে’, ‘রমনার বটমূলে কথা হবে প্রাণ খুলে’, ‘বাজে রে বাজে ঢোল আর ঢাক’ প্রভৃতি।

কবির বকুল গীতিকবিতায় নিজের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেছেন অনেকবার। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে চারবার শ্রেষ্ঠ গীতিকার হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন। এছাড়াও তিনবার জিতেছেন বাচসাস পুরস্কার, পেয়েছেন বিনোদন বিচিত্রা পুরস্কার, সিটিসেল-চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ড, ঢালিউড অ্যাওয়ার্ড, চ্যানেল এস (যুক্তরাজ্য) অ্যাওয়ার্ড।

ব্যক্তিগত জীবনে কবির বকুল বিয়ে করেছেন সঙ্গীতশিল্পী দিনাত জাহান মুন্নীকে। তাদের সংসারে প্রেরণা ও প্রতীক্ষা নামের দুই কন্যা এবং প্রচ্ছদ নামে এক ছেলে সন্তান রয়েছে।

 

 

নিউজজি/কেআই  

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

        









copyright © 2020 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers