বিনোদন

এবার চলচ্চিত্র নির্মাণে অভিনেতা শিমুল খান

নিউজজি প্রতিবেদক  জানুয়ারী ১৪, ২০২২, ১২:০৪:৫৫

  • এবার চলচ্চিত্র নির্মাণে অভিনেতা শিমুল খান

২০১৩ সালে ইফতেখার চৌধুরী পরিচালিত ‘দেহরক্ষী’ সিনেমা দিয়ে ঢাকাই চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন চলচ্চিত্র অভিনেতা শিমুল খান। এরপর সময়ের পরিক্রমায় এ পর্যন্ত তিনি ৫০টির বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। এরই মধ্যে যার ৩৫টি চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে। মুক্তির অপেক্ষায় আছে তার এক ডজনেরও বেশি সিনেমা।

মাঝে কিংবদন্তি পাবলিকেশন থেকে তার লেখা প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘সভ্যতার ময়নাতদন্ত : Autopsy Of Civilization’ প্রকাশ হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি চলচ্চিত্র বিষয়ক হালনাগাদ খবরের বাইরে আছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও বেশ কিছুদিন যাবত তার নতুন কোনো কাজের খবরে নেই। অবশেষে দীর্ঘদিন পর নতুন খবর দেন এই অভিনেতা।

তবে সেই খবরটি এলো একদম ভিন্নভাবে। এবার চলচ্চিত্র অভিনেতা শিমুল খান অভিনয় এবং লেখালেখির বাইরে ‘সাদা মনোলিথ : The White Monolith’ শিরোনামের একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করার মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছেন। 

এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘মীর শহীদ পিকচার্স’-এর সাথে উক্ত চলচ্চিত্রটির লেখক এবং নির্মাতা হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। এসময় নতুন এ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী মীর শহীদ এবং সিনেমাটির নির্বাহী প্রযোজক এটিএম রাকিবুল বাসার উপস্থিত ছিলেন।

অভিনয় রেখে চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রসঙ্গে শিমুল খান বলেন, আসলে বহু আগেই লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিলাম যে একদিন অভিনয়ের পাশাপাশি চলচ্চিত্র নির্মাণ করব। ভেবেছিলাম অভিনেতা হিসেবে আরও একটু সিনিয়র হওয়ার পরই চলচ্চিত্র নির্মাণ শুরু করব। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি আর সবার মতো আমার জীবনের গতিপথও দ্রুত পাল্টে দিয়েছে। তাই সময় নষ্ট না করে শুরু করে দিলাম। বাঁচবোইবা কয়দিন! নিজের লেখা কিছু বাস্তবভিত্তিক গল্পে এক জীবনে কয়েকটি অমর চলচ্চিত্র নির্মাণ করে মরতে চাই।

তিনি বলেন, তবে চলচ্চিত্র নির্মাণ ভাবনার শুরু থেকে নির্মাতা হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার এই সময়কালটা আমার জন্য সত্যিই মারাত্মক চ্যালেঞ্জিং ছিল। এতো সহজে সবকিছু হয়ে যায়নি। গত দুই বছর যাবত নীরবে আমাকে আমার যোগ্যতা, ধৈর্য্য এবং তুমুল চেষ্টা দিয়েই এই অবস্থায় এসে পৌছাতে হয়েছে। আমার সিনেমাটির প্রযোজক মীর শহীদ ভাই এবং নির্বাহী প্রযোজক এটিএম রাকিবুল বাসার ভাইয়ের কাছে আসলেই আমি চিরঋনী হয়ে থাকলাম। তারা আমার উপর বিশ্বাস স্থাপন না করলে হয়তো নির্মাতা হিসেবে আমার যাত্রা আরো খানিকটা বিলম্বিত হতো।

শিমুল খান বলেন, আমি অবশ্যই বাংলাদেশকে ‘সাদা মনোলিথ : The White Monolith’ শিরোনামের চলচ্চিত্রটি উপহার দিয়ে আমার প্রতি তাদের এই বিশ্বাসের মর্যাদা রক্ষা করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করব এবং নবীন চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে এটাই আমার চূড়ান্ত শপথ। চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবে আমার সকল অতীত ভুলত্রুটি গুলোকে দূরে ঠেলে- চলচ্চিত্র নির্মাতা হবার এই মহাযাত্রায় আমি সবাইকে নিবিড়ভাবে আমার পাশে চাই।

শিমুল খান জানান, বিশ্বের প্রথমসারির সব আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবগুলোতে জমা দেয়ার উদ্দেশ্যে ‘সাদা মনোলিথ : The White Monolith’ চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করতে যাচ্ছেন। সিনেমাটির আন্তর্জাতিক পরিবেশক হিসেবে যুক্ত থাকবেন আমেরিকার চলচ্চিত্র প্রযোজনা-পরিবেশনা প্রতিষ্ঠান মাংকি ফিল্মস আইএনসি। এরপর আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল সফর শেষ হলে তার প্রথম চলচ্চিত্রটিকে প্রেক্ষাগৃহ, টেলিভিশন, ডিজিটাল'সহ সব মাধ্যমে প্রদর্শন করবেন।

সিনেমাটিতে কারা অভিনয় করবেন সে বিষয়ে নির্মাতা শিমুল খান সিনেমাটির কঠোর গোপনীয়তার স্বার্থে এখনই কিছু বলতে না চাইলেও তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন বর্তমান ঢাকাই চলচ্চিত্রের শীর্ষ জনপ্রিয় একজন নায়িকার সাথে থিয়েটার এবং টেলিভিশনের প্রখ্যাত একজন অভিনেতার মেলবন্ধন ঘটাতে চান নিজের নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্রে।

শিমুল খান জানান, বঙ্গোপসাগরের একটি নির্জন দ্বীপে আগামী মার্চের এক তারিখ থেকে একটানা শুটিং করে একদম নিরবিচ্ছিন্নভাবে চলচ্চিত্রটির শুটিং শেষ করা হবে।

নিউজজি/রুআ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ