ফিচার
  >
ব্যক্তিত্ব

কবরী: ঢাকাই সিনেমা সমৃদ্ধ হলো যার অভিনয়ে

কামরুল ইসলাম  ১৭ এপ্রিল , ২০২১, ০১:২৫:২৫

  • কবরী: ঢাকাই সিনেমা সমৃদ্ধ হলো যার অভিনয়ে

‘বাংলা সিনেমার নায়িকা’- এই কথাটি উচ্চারিত হলে যে কজন নারীর নাম প্রথমেই মানুষের মুখে আসে, তাদের একজন কবরী। সেই ষাটের দশকে তার আবির্ভাব। নিয়মিতভাবে কাজ করেছেন আশির দশকের শেষ অব্দি। কিন্তু তার সেই মায়াবী রূপ, অনিন্দ্য চাহনী আর নিপুণ অভিনয়; এখনো দাগ কেটে আছে দর্শকদের মনে। 

‘মিষ্টি মেয়ে’ খ্যাত সেই কিংবদন্তি অভিনেত্রী আর নেই। চলে গেছেন না ফেরার দেশে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শুক্রবার রাত ১২টার দিকে রাজধানীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন কবরী। 

মহামারির দিনে এমনিতেই বিনোদন জগতে স্থবিরতা চলছে। তার মধ্যে কবরীর মতো নন্দিত তারকার বিদায়; চলচ্চিত্র অঙ্গনে যেন শোকের বন্যা বয়ে এসেছে। সোশ্যাল মিডিয়া মুহূর্তেই ভরে গেছে কবরীময় বিষাদে। 

কবরীর জন্ম ১৯৫০ সালের ১৯ জুলাই চট্টগ্রামের বাঁশখালিতে। তার আসল নাম মিনা পাল। বর্তমানে অবশ্য তিনি কবরী সারোয়ার নামে পরিচিত। যা মূলত তার দ্বিতীয় স্বামী গোলাম সারোয়ারের নামের সঙ্গে মেলানো।

চলচ্চিত্রের দুনিয়ায় পা রাখার আগে কবরী আত্মপ্রকাশ করেন নৃত্যশিল্পে। ১৯৬৩ সালে মাত্র ১৩ বছর বয়সেই তিনি মঞ্চে নৃত্য শুরু করেন। তার ঠিক এক বছর পরই ১৯৬৪ সালে কালজয়ী নির্মাতা সুভাষ দত্তের পরিচালনায় ‘সুতরাং’ সিনেমা দিয়ে রূপালি পর্দায় অভিষেক হয় তার। সে-ই শুরু, তারপর এক অবিস্মরণীয় অধ্যায়ের রচনা।

কখনো তিনি অভিমানী মুখে বলেছেন- ‘সে যে কেন এলো না, কিছু ভালো লাগে না’, আবার কখনো লাজুক চাহনীতে নীরব থেকেছেন ‘তুমি যে আমার কবিতা’ গানে। বাংলা সিনেমার অসংখ্য কালজয়ী গানের দৃশ্যে রয়েছেন কবরী। যেগুলো গুনগুন করে এখনো গেয়ে ওঠেন এ দেশের মানুষ।

কবরী অভিনয় করেছেন দেশের খ্যাতিমান সব নির্মাতার সিনেমায়। তার অভিনীত সিনেমাগুলোর মধ্যে রয়েছে- ‘হীরামন’, ‘ময়নামতি’, ‘চোরাবালি’, ‘সারেং বৌ’, ‘পারুলের সংসার’, ‘বিনিময়’, ‘আগন্তুক’, ‘বাহানা’, ‘তিতাস একটি নদীর নাম’, ‘রংবাজ’, ‘বেঈমান’, ‘গুণ্ডা’, ‘দেবদাস’, ‘সুজন সখী’, ‘বধূ বিদায়’, ‘দুই জীবন’, ‘দেমাগ’, ‘রঙিন নয়ন মনি’, ‘বিয়ের ফুল’, ‘আমাদের সন্তান’, ‘আয়না’ ও ‘মেঘের কোলে রোদ’ ইদ্যাদি।

ঢাকাই সিনেমার জুটি নিয়ে কথা উঠলে কবরীর নাম আসে একদম প্রথমে। রাজ্জাক-কবরী জুটিকে এখনো পর্যন্ত সবচেয়ে সফল ও জনপ্রিয় জুটি মনে করেন অনেকে। এছাড়া কবরীর একটি ব্যতিক্রম রেকর্ডও রয়েছে। তার বিপরীতেই অভিষেক হয়েছিল দেশের চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় পাঁচ নায়কের। তারা হলেন- ফারুক, জাফর ইকবাল, আলমগীর, উজ্জ্বল ও সোহেল রানা।

বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে কবরীর অর্জন বলতে দর্শকদের ভালোবাসা। পুরস্কারের দিক দিয়ে তুলনামূলক তিনি অপ্রাপ্তিতেই রয়েছেন। দীর্ঘ অভিনয় জীবনে মাত্র একবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। অবশ্য এর পেছনে কারণও রয়েছে। তিনি যখন ক্যারিয়ারে তুঙ্গে ছিলেন, তখনো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার চালুই হয়নি! অবশ্য কয়েক বছর আগে তিনি এই পুরস্কারে আজীবন সম্মাননা পেয়ছেন।

অভিনয় জীবনের বাইরে কবরী একজন রাজনীতিবিদ। তিনি ২০০৮ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।

নিউজজি/কেআই

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers