জীবনযাত্রা
  >
স্বাস্থ্য

ঋতু বদলের সময় শিশুর যত সমস্যা

নিউজজি ডেস্ক ২২ জানুয়ারি , ২০২০, ১৩:০০:২৫

  • ঋতু বদলের সময় শিশুর যত সমস্যা

হাওয়া পরিবর্তনের সাথে সাথে শিশুদের ত্বকে নানারকম সমস্যা দেখা যায়। চুলকানি, ত্বকের লাল হয়ে যাওয়া এরকম বিভিন্ন ত্বকের সমস্যা আপনার শিশুকে কষ্ট দিতে পারে। তবে চিন্তার কিছু নেই। সঠিক চিকিৎসা এবং সামান্য সচেতনতা আপনার শিশুকে রাখতে পারে সুস্থ। শিশুদের বিশেষ করে যাদের বয়স এক বছরেরও কম তাদের ক্ষেত্রে এই রোগ বেশি হয়। প্রায় ১০-১২ শতাংশ শিশুদের মধ্যে এই সমস্যা দেখা দেয়।

লক্ষণ : শিশুদের মাথায় খুব খুশকি হয়। গলায়, বগলে, থাইয়ের খাঁজে, ন্যাপি এরিয়ায় লাল লাল দাগ হয়, চামড়া উঠতে শুরু করে। মাঝে মাঝে রস বের হয়। চোখের পাতায়, চোখের পলকে স্কেলস হতে পারে।

করণীয়: নিয়মিত নারকেল তেল বা অলিভ অয়েল বাচ্চার চুলে লাগান। দুই থেকে তিন মাস মাথায় তেল লাগানো প্রয়োজন। কিটোকোনিজল বা জিংক পাইরেথিওন সমৃদ্ধ শ্যাম্পু দিয়ে সপ্তাহে দুই থেকে তিন বার শিশুর চুল পরিষ্কার করুন। দুই থেকে তিন মাস এই চিকিৎসা করতে হবে।

যেহেতু ত্বকে ইরিটেশন হয় তাই শিশুরা প্রায়ই এই জায়গাগুলো চুলকে ফেলে। ফলে চামড়া উঠে যাওয়াটা স্বাভাবিক। তাই ডাক্তারের পরামর্শে কোনো মলমজাতীয় ওষুধ লাগান।

শিশুর গায়ে ভালো করে তেল মাখান। নারকেল তেল, অলিভ অয়েল বা আমন্ড অয়েল দিয়ে ভালো করে মাসাজ করে সাবান ব্যবহার করুন। বাচ্চার জন্য লিকুইড সোপ সবচেয়ে ভালো। সাবানের পিএইচ মাত্রা শিশুর ত্বকের পিএইচ মাত্রার সমান সেরকম সাবান শিশুর ত্বকের জন্য উপযোগী।

অ্যাটপিক প্রবলেম : আবহাওয়ার কারণে শিশুদের ত্বক অনেক সময় অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে যায়। তার সঙ্গে এগজিমার মতো সমস্যাও হতে পারে। বারবার হাঁচি হতে পারে, যাকে বলা হয় অ্যালার্জিক রাইনাইটিস। পরিবারে কারো যদি এগজিমা বা অ্যাজমা থাকে, তাহলে তা বাড়ির শিশুদের মধ্যে বংশগতভাবে চলে আসতে পারে। তবে এসব সমস্যা সাধারণত শীতকালে বেশি হয়।

করণীয় : শিশুকে নিয়মিত নারকেল তেল বা অলিভ অয়েল দিয়ে মাসাজ করুন। ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা অত্যন্ত জরুরি। হোয়াইট সফট প্যারাফিন বা ফসপোলিপিড সমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার শিশুর ত্বকের পক্ষে উপকারী।

শিশুকে নিয়মিত ঈষদুষ্ণ পানিতে গোসল করান। খেয়াল রাখবেন পানির তাপমাত্রা যেন ৩৭ ডিগ্রির বেশি না হয়। দ্রুত গোসল করানোর চেষ্টা করুন, পাঁচ মিনিটের বেশি গোসল না করানো ভালো। এতে ত্বকের কর্নিয়াল লেয়ার ফুলে গিয়ে প্রদাহ হতে পারে। শিশুর সারা গায়ে যদি প্রচণ্ড চুলকানি হয় তাহলে দ্রুত ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন।

যা মনে রাখতে হবে: শিশুকে সরিষার তেল মাখাবেন না। সরিষার তেল থেকে ফুসকুড়ি বা প্রদাহ হতে পারে। সরিষার তেল মাখিয়ে বাচ্চাকে রোদে রাখার যে প্রচলিত রীতি আছে তা একেবারেই অনুচিত। এতে ত্বকের পিগমেন্টেশন বেড়ে যায় এবং শিশু কালো হয়ে যায়।

শিশুর ব্যবহারের সাবান এবং শ্যাম্পু সম্বন্ধে সচেতন থাকুন। বিজ্ঞাপন ভালো লাগলেই শিশুর জিনিস কিনে ফেলবেন না। যেসব সাবান বা শ্যাম্পু কোয়ালিটি কন্ট্রোলের মাধ্যমে পরীক্ষিত, সেসব পণ্য ব্যবহার করুন।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers