খেলা

১৫ নভেম্বর থেকে বিদেশি ক্রিকেটারহীন টোয়েন্টি-২০

স্পোর্টস রিপোর্টার অক্টোবর ২৫, ২০২০, ২৩:৩৩:০১

  • বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের ট্রফি তুলে দিচ্ছেন নাজমুল হাসান পাপন এমপি মাহামুদুল্লাহ'র হাতে

করোনাকালে একটার পর একটা আন্তর্জাতিক সিরিজ স্থগিত হওয়ায় ক্রিকেটারদের ক্রিকেটে ফেরানোটাই ছিল বিসিবি'র বড় চ্যালেঞ্জ। শ্রীলংকা সফর স্থগিত হওয়ায় ক্রিকেট প্রত্যাবর্তন নিয়ে উৎকণ্ঠায় ছিল বিসিবি। করোনাকালে জৈব সুরক্ষায় ৩ দলের বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

তাতেই স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি। ফাইনাল শেষে গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এই স্বস্তির কথাই শুনিয়েছেন তিনি-'ক্রিকেট মাঠে ফেরানোটাই ছিল মূল চ্যালেঞ্জ। ভয় ছিল কেউ না আবার করোনায় কেউ আক্রান্ত হয় কি না? তা হয়নি।'

আসছে ঘরোয়া এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট জৈব সুরক্ষায় হবে। জৈব সুরক্ষায় খেলার অভ্যেসটা প্রেসিডেন্টস কাপ দিয়ে নিতে পেরেছে বিসিবি, এমনটাই জানিয়েছেন তিনি-' দেশের মাটিতে সিরিজ আয়োজন এব বিদেশে খেলতে যাওয়ার  কথা  এখন চিন্তা করতে পারি। করোনার মধ্যে কিভাবে জৈব সুরক্ষা বলয়ে থেকে মাঠে খেলা যায়।তা জেনে গেছে ক্রিকেটাররা।' 

তিন দলের ওয়ানডে টুর্নামেন্ট শেষে ক'দিনের বিরতি দিয়ে ৫ দলের টোয়েন্টি-২০ টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে বিসিবি-প্রেসিডেন্টস কাপের উদ্বোধনী দিনেই তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি। ৫ দলের এই টুর্নামেন্টে কর্পোরেট হাউজগুলো অংশগ্রহন করতে পারে, এমন সম্ভাবনার কথাও জানিয়েছিলেন। তবে কর্পোরেট হাউজগুলোর অংশগ্রহন নিশ্চিত না হলেও আসর শুরুর তারিখটা ঠিক করেছেন বিসিবি সভাপতি- 'আশা করছি ১৫ নভেম্বর এটা শুরু হবে।  কালই ( সোমবার) বিস্তারিত দিয়ে দেব।'

কর্পোরেট দলগুলোর অংশগ্রহনের জন্য এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট আহ্বান করবে বিসিবি। এমনটাই জানিয়েছেন তিনি-'আমরা এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট দিয়ে দেব যে এই পাঁচ দলের জন্য কারা কারা স্পন্সর হতে চায়। ওই অনুযায়ী আমরা এটা ঠিক করে ফেলব।'

তবে বিপিএলের আদলে প্লেয়ার্স ড্রাফট হবে কি না, তা নির্ভর করছে কর্পোরেট হাউজগুলোর অংশগ্রহন করা এবং না করার উপর। তা জানিয়েছেন পাপন-'দলের সংখ্যা ঠিক হলেও দল কীভাবে তৈরি হবে তা এখনো চূড়ান্ত নয়।  স্পন্সররা চাইলে হতে পারে ড্রাফট। না হলে বিসিবিই খেলোয়াড়দের ভাগ করে দিতে পারে পাঁচ দলে। এছাড়া স্পন্সরদের দল বেছে নেওয়ার প্রক্রিয়াও এখনো ঠিক করা হয়নি বলে জানান নাজমুল।। সেজন্য দুটো অপশন চিন্তা করে রাখছেন তারা, দুটো অপশনের একটা হচ্ছে লটারি আরেকটা হচ্ছে ওরা যদি বলে আমি এটা চাই, আমি ওটা। যদি মিলে যায় তাহলে পাঁচ প্রতিষ্ঠান ৫টা দল পাবে। নাইলে লটারিতে চলে যাব।'

ড্রাফট না হলেও ক্রিকেটাররা টোয়েন্টি-২০ টুর্নামেন্ট থেকে ভাল সম্মানী পাবে বলে জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি।

তবে বিদেশি ক্রিকেটারের অংশগ্রহন থাকছে না আসন্ন টোয়েন্টি-২০ ক্রিকেটে, তা নিশ্চিত করেছেন বিসিবি সভাপতি-বিদেশি ক্রিকেটার আনলে লাভ কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের।তাছাড়া বিদেশি ক্রিকেটার আসলে তারা থাকবে ব্যাটসম্যান। আমাদের দরকার বোলার। তাই বিদেশি ক্রিকেটার নিয়ে টোয়েন্টি-২০ করছি না আমরা।'

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

        









copyright © 2020 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers