খেলা

দুই দিকে সুইং গড গিফটেড : হাসান মাহমুদ

স্পোর্টস রিপোর্টার জানুয়ারী ২৪, ২০২১, ১৮:৩৮:২৯

  • দুই দিকে সুইং গড গিফটেড : হাসান মাহমুদ

 
গত ২০ জানুয়ারি ওয়ানডে অভিষেকে ছড়িয়েছেন দ্যুতি ২১ বছর বয়সী পেসার হাসান মাহমুদ। লক্ষীপুরের এই ছেলেটি ওয়ানডে অভিষেকে পেয়েছেন ৩ উইকেট। 
দুই দিকে সুইং করাতে পারেন, এটাকে গড গিফটডে বলছেন এই তরুন পেসার। গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাতকারে বলেছেন তা।  
 
০ অভিষেকটা তো দারুণ হল ? 
হাসান মাহমুদ : যা হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ, যদিও অভিষেক ম্যাচটা ম্যাটার করে, তারপরও আলহামদুলিল্লাহ ভালো হয়েছে, ভালো শুরু হয়েছে।(দ্বিতীয় ম্যাচেও) চেষ্টা করেছি প্রথম ম্যাচের মতই পারফর্ম করার। কিন্তু হয়নি, অসুবিধা নাই, ইনশা আল্লাহ নেক্সট টাইম হবে।
০ স্মুথ অ্যাকশন ?
হাসান মাহমুদ : এটা আসলে গড গিফটেড আসলে। আমি আমার মতই বল করি (হাসি)।
 
০ ইনজুরি, রিহ্যাব শেষে আন্তর্জাতিক অভিষেক। পুরো প্রক্রিয়াটা কেমন ছিল?
হাসান মাহমুদ : ইনজুরির সময়টা আসলে চাপের মধ্যেই ছিলাম যে একটা বছর রিহ্যাব বলেন, রেস্ট বলেন কামব্যাক করতে করতে প্রায় এক বছর হয়ে গিয়েছিল। পরে এইচপিতে ব্যাক করেছি, ওখানে ভালো করেছি, ওখান থেকেই শুরু হয়েছে।
০ ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পার্থক্যটা কতোটা ? 
হাসান মাহমুদ : পার্থক্যটা হল যে ঘরোয়া লিগে আমরা আমরা, নিজেদের মধ্যেই খেলা হয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অপিরিচিত সবাই আছে এখানে। ওদের সাথে শুরুটা ভালো হয়েছে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে শুরু করেছি আলহামদুলিল্লাহ। ইন শা আল্লাহ ভালোই হবে।
০ ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই দুর্বল দল না হয়ে যদি ভারত কিংবা ইংল্যান্ডের মত দলের বিপক্ষে অভিষেক হত, তাহলেও কি একই মানসিকতা রাখতেন?
হাসান মাহমুদ : জ্বী, অবশ্যই। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে হলে অবশ্যই এরকম মানসিক শক্তি দরকার যেরকম লাগবে আরকি। তো অবশ্যই চেষ্টা থাকবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হোক ঘরোয়া ক্রিকেট হক লাইন, লেংথের সাথে কম্প্রমাইজ করা যাবেনা, প্লাস পেস। ওভারঅল চেষ্টা করবো।
০ অনেক কোচের সাথেই কাজ করেছেন। কার কোচিং বেশি ইমপ্যাক্ট পড়েছে আপনার বোলিংয়ে? ওটিস গিবসনের সাথে কেমন কাজ হচ্ছে?
হাসান মাহমুদ : সবারই আসলে পেস বোলিং কোচিং থিমটা একই রকম হয়। ঘরোয়া কোচ বলেন বা বাইরের যে কোচই থাকুক একই রকম হয়। এখানে ও (ওটিস গিবসন) ভালো ভালো দিক নির্দেশনা দিচ্ছে। লাইন লেংথ, ইয়র্কার, স্লোয়ার এগুলো আরেকটু নিখুঁত করার জন্য উনারা যা বলতেছে তাই করতেছি।
০ অভিষেক ক্যাপ পরার কেমন অনুভূতি হয়েছে ?
হাসান মাহমুদ :  আসলে বলার মত কোন ভাষা নাই।  একটা স্বপ্ন ছিল, ছোট বেলা থেকেই ক্রিকেট খেলার ইচ্ছে ছিল। বলবো যে আল্লাহ তায়ালার একটা উপহার যে জাতীয় দলে আসতে পেরেছি।
০ দুই দিকেই সুইং করাতে পারেন,  রহস্যটা বলবেন ?
হাসান মাহমুদ : এটা আসলে কারো কারো জন্য ন্যাচারাল, আবার কেউ নিজেরা করে। এটা টেস্ট ক্রিকেটের জন্য খুবই ভালো। ট্রাই করবো লাইন, লেংথ ঠিক রাখতে ছোট খাটো সুইং থাকবে।
০ দিন দিন পেসারদের গতি বাড়ে এমনটা বলা হয়ে থাকে...?
হাসান মাহমুদ : প্রকৃতপক্ষে জিনিসটা হল প্রসেস। ডে বাই ডে আপনি কি করছেন, কতটুকু কাজ করছেন কতটুকু মেইনটেইন করছেন, নিজেকে এটার উপর ভিত্তি করে পেসটা দিন দিন বাড়টে থাকে।  খুবই গুরুত্বপূর্ণ নিজেকে মেইনটেইন করা।


 


 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers