খেলা

চিকিৎসকদের অবহেলায় ম্যারাডোনার মৃত্যু!

ক্রীড়া ডেস্ক জুন ২৩, ২০২২, ১৪:০৭:২৯

  • ছবি: ইন্টারনেট

কিংবদন্তি ডিয়েগো ম্যারাডোনা মারা গেছেন দেড় বছর আগে। তারপরও তার মৃত্যুর রহস্য থামেনি। ২০২০ সালের ২৫ নভেম্বর ডিয়েগো আরমান্ডো ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর থেকেই প্রশ্নটা উঠছে। চিকিৎসক ও নার্সদের অবহেলাই আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির মৃত্যুর কারণ নয় তো? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতেই অস্ত্রোপচারের পর কিংবদন্তির চিকিৎসার সঙ্গে জড়িত আটজনকে দাঁড়াতে হবে আদালতের কাঠগড়ায়।

ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর থেকেই আর্জেন্টাইন আইনজীবীরা তার দেখভালের দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক ও নার্সদের নিয়ে তদন্ত শুরু করেন। শেষ পর্যন্ত চিকিৎসায় অবহেলার কারণে লিজেন্ডারি আর্জেন্টাইন ফুটবলারের মৃত্যুর অভিযোগে তার চিকিৎসায় নিয়োজিত ৮ জনকে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হচ্ছে। ২০২৩ সালের শেষ থেকে ২০২৪ সালের শুরুর মধ্যে আদালতে উঠতে পারে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েট প্রেস। অভিযুক্ত এই আটজনের মধ্যে আছেন ম্যারাডোনার পারিবারিক চিকিৎসক ও নার্স।  ম্যারাডোনার চিকিৎসায় ঘাটতি ও অনিয়ম ছিল এমন প্রমাণ পাওয়ার পর হত্যার বিচারের আদেশ দিয়েছেন এক বিচারক।

২০২০ সালের নভেম্বরে বুয়েন্স আয়ার্সে ৬০ বছর বয়সে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান ম্যারাডোনা। ওই মাসের শুরুতে মস্তিষ্কের রক্ত জমাট বাঁধায় অস্ত্রোপচার করানোর পর হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছিলেন তিনি।

ম্যারাডোনার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনে গত বছর ২০ জন বিশেষজ্ঞের একটি প্যানেল নিযুক্ত করা হয় তদন্তে। তারা খুঁজে পান ম্যারাডোনার মেডিক্যাল টিম চিকিৎসায় অবহেলা করেছেন।

আদালতের রুলে আরও বলা হয়েছে, সঠিক চিকিৎসা হলে ম্যারাডোনার বেঁচে থাকার সুযোগ ছিল। ম্যারাডোনার নিউরোসার্জন ও ব্যক্তিগত চিকিৎসক লিওপোলদো লুকুয়ে, একজন সাইক্রিয়াট্রিস্ট ও সাইকোলোজিস্ট, দুজন চিকিৎসক, দুজন নার্স ও তাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকতার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। তারা বিশ্ব জয়ী অধিনায়কের মৃত্যুর পেছনে হাত থাকার দাবি অস্বীকার করেছেন।

আর্জেন্টিনার আইন অনুযায়ী, এই অপরাধ প্রমাণ হলে তাদের আট থেকে ২৫ বছর কারাদণ্ড হতে পারে। বিচারের দিনক্ষণ এখনও নির্ধারিত হয়নি। 

নিউজজি/সিআর

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ