বিদেশ

সিনেটে বাইডেনের নাগরিক প্রণোদনার প্রস্তাব

নিউজজি ডেস্ক ৬ মার্চ , ২০২১, ২১:০৫:৪৯

  • ছবি: ইন্টারনেট

ঢাকা: নতুন নাগরিক প্রণোদনা প্রস্তাব পরিবর্তন-সংশোধনের জন্য মার্কিন সিনেটে ভোটাভুটি হচ্ছে। শনিবার সকালে কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে ১ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন ডলারের এই প্রণোদনা প্রস্তাব নিয়ে ভোটাভুটি শুরু হয়।

সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, সিনেটে এই প্রণোদনা প্রস্তাবের পরিবর্তন-সংশোধন  নিয়ে ভোট শুরুর আগে শুক্রবার প্রায় ১২ ঘণ্টা সংখ্যাগরিষ্ঠ সিনেট নেতাদের মধ্যে আলোচনা হয়। এই আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার সিনেটর জো মানচিন। কারণ, ডেমোক্রেটিক দলীয় সিনেটর হলেও মানচিন এই প্রস্তাবের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। পরে তার সমর্থন ছাড়াই প্রস্তাব পরিবর্তন-সংশোধনের জন্য সিনেটে ভোটাভুটি শুরু হয়। যদিও তার ভোট নেয়ার জন্য জোর চেষ্টা চালানো হয়েছিল।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে ডেমোক্র্যাটরা সিনেটে নতুন নাগরিক প্রণোদনা প্রস্তাব নিয়ে ভোট আহ্বান করেন। কিন্তু ডেমোক্র্যাট সিনেটর মানচিন ইঙ্গিত দেন। তিনি এই প্রস্তাব নয় বরং রিপাবলিকানদের প্রস্তাব সমর্থন করেন। এ নিয়ে তার সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনা চলে। শেষমেশ তিনি ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বেকারদের সপ্তাহে অতিরিক্ত ৩০০ ডলার দেয়ার পক্ষে মত দেন।

জো মানচিন এক বিবৃতিতে বলেন, আগামী বছর অপ্রত্যাশিত শুল্ক বিপর্যয়ের হাত থেকে বেকারত্বের সুবিধা গ্রহণকারীদের রক্ষা করার পাশাপাশি দ্রুত অর্থনৈতিক চঞ্চলতা ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে আমরা সমঝোতায় পৌঁছেছি।

এ বিষয়ে হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি ৫ মার্চ বলেন, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ ধরনের সমঝোতা চুক্তি সমর্থন করেন। এই সমঝোতায় পৌঁছাতে যেসব সিনেটর কঠোর পরিশ্রম করেন তাদের সবার কাছে কৃতজ্ঞ তিনি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নতুন দুই ট্রিলিয়ন ডলারের নাগরিক প্রণোদনা প্রস্তাবে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদেরও অন্তর্ভুক্ত রাখা হয়েছে। আর যাদের বার্ষিক আয় ৭৫ হাজার ডলারের কম তাঁরা জনপ্রতি ১ হাজার ৪০০ ডলারের চেক পাবেন। এছাড়া, রাজ্য ও মিউনিসিপ্যালটি তহবিল এবং স্কুল ও করোনার টিকাদান কর্মসূচিতে প্রণোদনা দেয়া হবে।

প্রণোদনা প্রস্তাবের পরিবর্তন-সংশোধনের পর সিনেটে ভোটাভুটিতে এই বিল পাস হবে বলে আশা করা হচ্ছে। পরে তা চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য হোয়াইট হাউসে পাঠানো হবে। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তাতে সই করলেই যুক্তরাষ্ট্রের মানুষ নতুন নাগরিক সহযোগিতার নগদ অর্থ পেতে শুরু করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

ডেমোক্র্যাটরা চায়, আগামী ১৪ মার্চের মধ্যে এই বিলটি পাস করে প্রেসিডেন্টের কাছে পাঠানো হোক। কারণ, ১৪ মার্চের মধ্যে বর্তমানের জরুরি বেকার সুবিধার মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে।

এদিকে, আইআরএস আগের উদ্দীপনা চেক যেভাবে দিয়েছে সে সময়সীমা এবারো বজায় রাখতে পারলে মার্কিনরা মার্চের শেষ দিক থেকে এপ্রিলের শুরুতে উদ্দীপনা চেক পেতে পারে। যদি উদ্দীপনা প্যাকেজটি ১৪ মার্চের মধ্যে আইনে পরিণত হয় তবে প্রথম সরাসরি আমানত ২২ মার্চের দিকে মানুষের কাছে যেতে শুরু করতে পারে।

২৭ ফেব্রুয়ারি প্রণোদনা প্রস্তাব প্রতিনিধি পরিষদে ২১৯-২১২ ভোটে পাস হয়। সে সময় ডেমোক্রেটিক দলের দুজন প্রতিনিধি এই বিলের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন। তারা হলেন—ওরেগন অঙ্গরাজ্যের কুর্ট শ্রাদার ও মেইনের জ্যারেড গোল্ডেন। তারপরও প্রতিনিধি পরিষদে তা পাস হয়।

প্রতিনিধি পরিষদ পাস হওয়া নতুন উদ্দীপনা বিলে বলা হয়, গত বছর যাদের বার্ষিক আয় ১ লাখ ডলারের নিচে এবং অবিবাহিত বা বার্ষিক আয় দেড় লাখ ডলারের নিচে এবং পরিবারের প্রধান, বা বার্ষিক আয় দুই লাখ ডলার এবং বিবাহিত তারা এই প্যাকেজের আওতায় সহযোগিতার অর্থ পাবেন। এই আয়সীমাতে যারা অবিবাহিত এবং আয়করদাতা তাদের প্রত্যেকের জন্য ১ হাজার ৪০০ ডলার এবং বিবাহিত যুগলের জন্য ২ হাজার ৮০০ ডলার এই বিলে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। আয়করদাতার সন্তানদেরও ১ হাজার ৪০০ ডলার করে দেয়া হবে।

এর আগে ৬ মার্চ মার্কিন কর্মজীবীদের ন্যূনতম মজুরি ঘণ্টায় ১৫ ডলার করার প্রস্তাবের বিপক্ষে জো মানচিনসহ সিনেটে ডেমোক্রেটিক দলের আটজন সদস্য অবস্থান নিয়েছেন। বাকি সাত সিনেটর হলেন—ক্রিস্টিন সাইনেমা, জেইন শাহিন, ম্যাগি হ্যাসান, জন টেস্টার, টম কার্পার, ক্রিস কুনস ও অ্যাঙ্গুস কিং।

পরে সিনেটে ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধির প্রস্তাবটি ৫৮-৪২ ভোটে প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। এমন মজুরি বৃদ্ধি দায়িত্বশীল এবং গ্রহণযোগ্য নয় বলে প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন রক্ষণশীল ডেমোক্র্যাট হিসেবে পরিচিত সিনেটর জো মানচিন।

নিউজজি/আইএইচ

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers