বিদেশ

আগামী বছর হিরোশিমায় জি-৭-এর শীর্ষ সম্মেলন আয়োজনের পরিকল্পনা

নিউজজি ডেস্ক ২০ মে , ২০২২, ১৪:৫১:০৬

  • ছবি: ইন্টারনেট

ঢাকা: আসন্ন জাপান সফরের সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে আগামী বছর হিরোশিমায় সাতটি দেশের জি-৭-এর শীর্ষ সম্মেলন আয়োজনের বিষয়ে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা।বৃহস্পতিবার জাপানের সরকারি সূত্র থেকে এ খবর জানা গেছে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ দিকে ১৯৪৫ সালের ৬ আগস্ট জাপানের হিরোশিমা বিশ্বের প্রথম পারমাণবিক বিস্ফোরণের সাক্ষী হয়।বিশ্ব থেকে পারমাণবিক অস্ত্র নির্মূল করার জন্য বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান জানানোর উদ্দেশে আগামী বছর হিরোশিমায় জি-৭-এর শীর্ষ সম্মেলন আয়োজনের পরিকল্পনা করছে প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা'র সরকার।

সূত্র থেকে জানা গেছে, আগামী সোমবার বাইডেন ও কিশিদা'র বৈঠকে,প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা আগামী বছর হিরোশিমায় সম্মেলন আয়োজনের তাৎপর্য ব্যাখ্যা করবেন এবং সমর্থন চাইবেন বলে আশা করা হচ্ছে। 

হিরোশিমাকে আগামী বছরের জি-৭ শীর্ষ সম্মেলন আয়োজনের শান্তির গুরুত্বের উপর জোর দিতে পারে সাতটি দেশের সংগঠনটি। কারণ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে যুদ্ধ চালাচ্ছেন এবং পারমাণবিক অস্ত্রের আশ্রয় নেওয়ার হুমকি দিয়েছে।১৯৪৫ সালের বোমা হামলায় হিরোশিমা শহরটি বিধ্বস্ত হয়েছিল এবং সেই বছরের শেষ নাগাদ আনুমানিক ১৪০,০০০ জন নিহত হয়েছিল।

জাপান ইতিমধ্যেই নিম্ন-স্তরের বৈঠকে জি-৭ অন্যান্য সদস্যদের কাছে হিরোশিমাকে বাছাই করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মেলনের জন্য  হিরোশিমাকে নির্বাচন করার আগে জাপানকেও দেখতে হবে জি-৭-এর সদস্যদের মধ্যে থাকা ব্রিটেন এবং ফ্রান্স এই পরিকল্পনার সমর্থন করবে কিনা।

প্রসঙ্গত, জাপান এ পর্যন্ত ছয়টি জি-৭ শীর্ষ সম্মেলন আয়োজন করেছে।এর আগের সমাবেশটি ২০১৬ সালে জাপানের মি প্রিফেকচারে অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

উল্লেখ্য, জি-৭ এর পূর্ণাঙ্গ রূপ হল গ্রুপ অফ সেভেন, বা সাতটি দেশের দল। বিশ্বের তথাকথিত উন্নত অর্থনীতির সাতটি বড় দেশ ও একটি সংস্থা নিয়ে এই জোট গঠিত।এই জোটের সদস্য দেশ হল কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান, যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়া ইউরোপীয় ইউনিয়ন এই জোটের একটি অংশ।

নিউজজি/এস দত্ত

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ