বিদেশ

নতুন সেনাপ্রধান নিয়োগের কথায় তারা ভীত ছিল: ইমরান

নিউজজি ডেস্ক ২৫ জুন , ২০২২, ১৪:৫৭:৫৪

  • ইন্টারনেট থেকে

ঢাকা: লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদকে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর পরবর্তী প্রধান হিসাবে নিয়োগ করার পরিকল্পনা থাকায় দেশটির জোট সরকারের দলগুলো ভীত ছিলো বলে জানিয়েছেন ইমরান খান। বুধবার তিনি এমন তথ্য দিয়েছেন।

পাকিস্তানে সরকার​পরিবর্তনের ষড়যন্ত্র এবং দেশটির অস্থিতিশীলতার বিষয়ে অনুষ্ঠিত সেমিনারে পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান বলেন, ‘তারা ভয় পেয়ে যায়, লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফয়েজকে সেনাপ্রধান নিয়োগ দিতে চাই জেনে। তারা আশংকা করে যদি এটা করা হয় তবে তাদের রাজনৈতিক ভবিষ্যত নষ্ট হয়ে যাবে।’

পাকিস্তানের সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পাকিস্তানের বর্তমান শাসকরা দেশটির সেনাবাহিনী ও আন্তঃবাহিনীর গোয়েন্দা সংস্থা ‘আইএসআই’কে ভয় পায়। কারণ তারা জানে তাদের দুর্নীতি এক পর্যায়ে ধরা পড়বে। ইমরান খান তার নিজের দুর্নীতি বাঁচাতে চান না, তিনি তার নিজস্ব সেনাপ্রধানও নিয়োগ করতে চান না।’ তিনি বলেন, বর্তমান শাসকরা দাবি করেন তিনি তার পছন্দের একজনকে সেনাপ্রধান নিয়োগ করতে চেয়েছিলেন।

বর্তমান জোট সরকারের দলগুলোর এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ‘কখনই কাউকে নিজের ইচ্ছে মতো সেনাপ্রধান নিয়োগের কথা ভাবিনি। কখনই এমন সিদ্ধান্ত নেইনি যা যোগ্যতা ভিত্তিক নয়। যেকোনো নিয়োগে যোগ্যতাকে গুরুত্ব দিয়েছি।’

বর্তমান শাসকরা পাকিস্তানের সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করছে এবং প্রতিটি স্থানে নিজেদের লোক নিয়োগ দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন ইমরান। পাকিস্তানে সরকার​পরিবর্তনের মার্কিন ষড়যন্ত্রের বিষয়ে পিটিআই চেয়ারম্যান বলেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কোনো দেশের উন্নতির জন্য সেখানকার সরকার​পরিবর্তনের ষড়যন্ত্র করে না। তারা এমন অপকর্ম করে তাদের নিজেদের স্বার্থের জন্য।

এর আগে ইমরান খান বলেছেন, ‘আমরা কেন সরকারবিরোধী আন্দোলন করছি, তার বিষয়েও বলতে চাই। আমরা মূলত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যে বিদেশি ষড়যন্ত্র চলছিল তার বিরুদ্ধে এমন পদক্ষেপ নিয়েছি। এ ষড়যন্ত্র মূলত যুক্তরাষ্ট্র থেকে পরিচালিত হচ্ছিল, যাতে করে (ইমরান খানের) সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা যায়। এ ক্ষেত্রে পাকিস্তানের সবচেয়ে দুর্নীতিবাজ লোকদের ব্যবহার করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এরা নিজেদের দুর্নীতির খবর গোপন করার জন্য সবকিছুই করতে পারে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এ বিদেশি ষড়যন্ত্রের নীলনকশা আট মাস আগে তৈরি করা হয়। জুন মাসে আমাকে এ বিষয়ে সতর্ক করা হয়। আগস্টের পরে পুরোপুরি বুঝতে পারি কী ঘটছে। আমরা আমাদের পক্ষ থেকে যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি যাতে কোনো উপায়ে এ ষড়যন্ত্র বাতিল করা যায়, কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত এটা বন্ধ করতে পারিনি।’

নিউজজি/এসজেড

 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ