সাহিত্য

শিশুসাহিত্যিক সুনির্মল বসুর জন্মদিন আজ

নিউজজি প্রতিবেদক ২০ জুলাই , ২০২১, ০৯:৪২:৪৫

  • শিশুসাহিত্যিক সুনির্মল বসুর জন্মদিন আজ

‘কিশোর মোরা ঊষার আলো, আমরা হাওয়া দুরন্ত

মনটি চির বাঁধন হারা পাখির মত উড়ন্ত।’,

‘গল্প না ভাই, কল্পনা নয়,

‘স্বপন-বুড়ো এসে

আমায় নিয়ে উধাও হলো

সব-পেয়েছির দেশে।’ 

কিংবা

‘আকাশ আমায় শিক্ষা দিল

উদার হতে ভাই রে,

কর্মী হবার মন্ত্র আমি

বায়ুর কাছে পাই রে।’

-এমনই অসংখ্য হৃদয়গ্রাহী ছড়া-কবিতার রচয়িতা শিশুসাহিত্যিক সুনির্মল বসু। আজ ২০ জুলাই গুণী এই সাহিত্যজনের জন্মদিন। ১৯০২ সালের এইদিনে বিহারের গিরিডির মঞ্চৎপুরে মামাবাড়িতে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তবে তার বাবার বাড়ি বাংলাদেশের মুন্সিগঞ্জের বিক্রমপুর এলাকার মালাখাননগর গ্রামে। 

সুনির্মল বসুর বাবার নাম পশুপতি ঠাকুর। সাহিত্যিক ও সাংবাদিক গিরিশচন্দ্র বসু ছিলেন তার পিতামহ এবং প্রখ্যাত বিপ্লবী ও সাহিত্যিক মনোরঞ্জন গুহঠাকুরতা ছিলেন তার মাতামহ। সুনির্মল পিতার কর্মস্থল পাটনার গিরিডি স্কুল থেকে ম্যাট্রিক (১৯২০) পাস করে কলকাতার সেন্ট পলস কলেজে ভর্তি হন, কিন্তু গান্ধীজীর অসহযোগ আন্দোলনে (১৯২১) যোগ দিয়ে কলেজ ত্যাগ করেন।

কৈশোর থেকেই কবিতা লেখা ও ছবি আঁকার প্রতি তার ছিল প্রবল দুর্বলতা। তিনি কিছুদিন অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আর্ট কলেজে ছবি আঁকা শেখেন। সুনির্মল বসুর প্রথম নাম ছাপা হয় ১৩২০ বঙ্গাব্দে ‘সন্দেশ’ পত্রিকায়; ধাঁধার উত্তরদাতা হিসেবে। এরপর থেকে বিভিন্ন পত্রিকায় তার লেখা প্রকাশ হতে থাকে। মজার বিষয় হলো, সুনির্মল বসু প্রথম লেখা শুরু করেছিলেন ‘সুনির্মল শর্মা’ নামে।

সারাজীবন তিনি ছোটদের জন্য লিখেছেন এবং শিশুদের মনন ও বিকাশে কাজ করেছেন। ছোটদের জন্য তার লেখা ছড়া-কবিতার বিষয়-আশয় ছিল বিচিত্র। শিশুর কল্পনা, স্বপ্ন, হাসি-ঠাট্টা, বিদ্রূপ, স্বদেশপ্রেম, প্রকৃতি, ঋতু, ফুল-পাখি ও নদীর নানা বর্ণনার কথা তুলে এনেছেন তার লেখার মাধ্যমে। 

বিশেষ করে বাংলার বিপ্লবী অমর সন্তানদের নিয়ে রচিত কবিতাগুলো আজও স্মরণীয়। তিনি শিশুদের জন্য গল্প, উপন্যাস, রূপকথা, ভ্রমণকাহিনি, কৌতুক ও নাটক রচনা করেছেন। সুনির্মল বসুর উল্লেখযোগ্য বই- ছানাবড়া, বেড়ে মজা, কথা শেখা, পাততাড়ি, ছন্দের টুং টাং, আনন্দ লুডু, কবিতা শেখা, আমার স্বপ্ন, জীবন খাতার কয়েকপাতা ইত্যাদি। 

‘ছোটদের চয়নিকা’ ও ‘ছোটদের গল্প সঞ্চয়ন’ তার সম্পাদিত দুটি উল্লেখযোগ্য শিশুতোষ গ্রন্থ। তার রচিত আত্মজীবনী জীবন খাতার কয়েক পাতার প্রথম খণ্ড প্রকাশিত হয়েছে।

সুনির্মল সমকালের একমাত্র শিশুতোষ পাক্ষিক পত্রিকা কিশোর এশিয়ার পরিচালক ছিলেন। তিনি দিল্লিতে অনুষ্ঠিত প্রবাসী বঙ্গসাহিত্য সম্মেলনের শিশু-সাহিত্য শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। সাহিত্যকর্মে অবদানের জন্য ১৯৫৬ সালে তিনি ভুবনেশ্বরী ও বিদ্যাসাগর পুরস্কার লাভ করেন। 

১৯৫৭ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি শিশুদের প্রিয় লেখক সুনির্মল বসু না ফেরার দেশে পাড়ি জমান।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers